বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস প্ৰশ্ন উত্তর সমস্ত ধরনের পরীক্ষার্থীদের জন্য

 বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস প্ৰশ্ন উত্তর সমস্ত ধরনের পরীক্ষার্থীদের জন্য 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস

 

 বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস থেকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন উত্তর আলোচনা করা হয়েছে যা সমস্ত নকম্পিটিটিভ পরীক্ষার্থীরা উপকৃত হবেন।

বাংলা-সাহিত্যের-ইতিহাস-প্ৰশ্ন-উত্তর-সমস্ত-ধরনের-পরীক্ষার্থীদের-জন্য

 

Table of Contents

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস ছোট প্ৰশ্ন উত্তর

 

প্রশ্ন ।। বাংলা গদ্যের বিবর্তনে বিশেষ ভূমিকা আছে এমন দুইটি প্রতিষ্ঠানের নাম কর ? 

 

উত্তর। শ্রীরামপুর মিশন ও ফোর্ট উইলিয়ম কলেজ।

 

প্রশ্ন ।। ফোর্ট উইলিয়াম কলেজ কত খ্রীষ্টাব্দে স্থাপিত হয়?

 

 উত্তর। ১৮০০ খ্রীষ্টাব্দে।

 

প্রশ্ন ।। শ্রীরামপুর মিশন কবে স্থাপিত হয় ?

 

উত্তর। ১৮০০ খ্রীষ্টাব্দে।

 

প্রশ্ন । শ্রীরামপুর মিশন কারা স্থাপন করেন?

 

উত্তর। উইলিয়াম কেরী, মার্শম্যন, ওয়ার্ড প্রভৃতি ব্রিটিশ ধর্মপ্রচারকরা শ্রীরামপুর মিশন স্থাপন করেন।

 

প্রশ্ন ।। শ্রীরামপুরে মিশন স্থাপনের উদ্দেশ্য কি ছিল ?

 

 উত্তর। এই মিশনের লক্ষ্য ছিল দেশীয় লােকদের মধ্যে খ্রীষ্টান ধর্ম প্রচার করা, সাধারণ হিন্দু মুসলমানকে খ্রীষ্টানধর্মে দীক্ষিত করা। 

 

প্রশ্ন ।। প্রথম বাংলা গদ্যের নিদর্শন কি?

 

উত্তর। কুচবিহারের মহারাজা নরনারায়ণের পত্রই প্রথম বাংলা গদ্যের নিদর্শন (১৫৫৫ খ্রীষ্টাব্দে)।

 

প্রশ্ন ।। খাটি চলতি রীতির প্রথম ব্যবহার কোন গ্রন্থে দেখা যায়? 

 

উত্তর। ১৮৬৫ সালে কালীপ্রসন্ন সিংহের হুতােম প্যাচার নক্শা’য় প্রথম ব্যবহার দেখা যায়। 

 

প্রশ্ন ।। ‘ক্রেপার শাস্ত্রের অর্থভেদ’ কার লেখা? 

 

উত্তর। পর্তুগীজ রােমান ক্যাথলিক পাদ্রী মনােএল দা আসসুপসাঁও। 

 

প্রশ্ন ।। বাইবেলের প্রথম বাংলা অনুবাদ প্রকাশিত হয় কখন?

 

উঃ ১৮০১ খ্রীষ্টাব্দে New Testament এর সম্পূর্ণ এবং old Testament এর

কিয়দংশ এবং ১৮০৯ খ্রীষ্টাব্দে সমগ্র বাইবেল ধর্মপুস্তক নামে প্রকাশিত হয়। 

 

 প্রশ্ন ।। মঙ্গলসমাচার মতীয়ের রচিত’ অনুবাদটি কে রচনা করেন? 

 

উত্তর। উইলিয়াম কেরী।

 

প্রশ্ন ।। ফোর্ট উইলিয়াম কলেজে কখন বাংলা বিভাগ খােলা হয় ? 

 

উত্তর। ১৮০১ খ্রীষ্টাব্দের মে মাসে।

 

প্রশ্ন ।। সমাচার দর্পণ’ কখন প্রকাশিত হয়?

 

উঃ ১৮১৮ খ্রীষ্টাব্দে। 

 

প্রশ্ন ।। দির্শন কবে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ  ১৮১৮ খ্রীষ্টাব্দে। 

 

প্রশ্ন ।। উইলিয়াম কেরী সংস্কৃত এবং বাংলা কাদের কাছে শিখেছিলেন?

 

 উত্তর। উইলিয়াম কেরী মৃত্যুঞ্জয় বিদ্যালঙ্কার-এর কাছে সংস্কৃত এবং রামরাম বসুর কাছে বাংলা শিখেছিলেন।

 

প্রশ্ন ।।কথোপকথন’ গ্রন্থটি কার লেখা? কত খ্ৰীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

 উত্তর। কথােপকথন’ গ্রহটি উইলিয়ম কেরীর লেখা। এটি ১৮০১ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়। 

 

প্রশ্ন ।। সর্বপ্রথম ছাপা বাংলা বই-এর নাম কি?

 

উঃ নিউ টেষ্টামেন্টের অন্তর্গত মঙ্গল সমাচার। 

 

প্রশ্ন ।। ইতিহাসলা’ গ্রন্থটি কার লেখা? কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ উইলিয়াম কেরীর লেখা। ১৮১২ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়। 

 

প্রশ্ন ।। কথােপকথন’ গ্রন্থটি কে কি উদ্দেশ্যে রচনা করেন?

 

উঃ  উইলিয়াম কেরী সাহেব ছাত্রদের মৌখিক বাংলা শেখাবার জন্য রচনা করেন।

 

প্রশ্ন ।। কোর্ট উইলিয়াম কলেজের বাংলা ও সংস্কৃত বিভাগের প্রধান কে ছিলেন?

 

উঃ ‘ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের বাংলা ও সংস্কৃত বিভাগের প্রধান ছিলেন উইলিয়াম কেরি।

 

প্রশ্ন ।। কোট উইলিয়াম কলেজে বাংলা বিভাগের প্রধান পণ্ডিত কে ছিলেন? 

 

উঃ : মৃত্যুঞ্জয় বিদ্যালঙ্কার।

 

প্রশ্ন ।। রাজা প্রতাপাদিত্য চরিত্র গ্রন্থটি কার লেখা? কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ রামরামবসুর লেখা। ১৮০১ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়।

 

প্রশ্ন ।। লিপিমালা’ পুস্তকটি কবে প্রকাশিত হয়? কার লেখা?

 

১৮০২ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়। রামরাম বসুর লেখা। 

 

 

বাংলা সাহিত্যের কুইজ প্রশ্ন ও উত্তর

 

 

প্রশ্ন ।। রামরামের গদ্য ই দুটির নাম কি?

 

রাজা প্রতাপাদিত্য চরিত্র’ (১৮০১) ও লিপিমালা’ (১৮০২)। 

 

প্রশ্ন ।। মৃত্যুঞ্জয় বিদ্যালঙ্কার-এর লেখা গ্রন্থগুলির নাম লেখ?

 

বত্রিশ সিংহাসন’ (১৮০২), হিতােপদেশ’ (১৮০৮), রাজাবলি’ (১৮০৮)।

 

প্রশ্ন ।। মৃত্যুঞ্জয় বিদ্যালঙ্কার-এর মৃত্যুর পর প্রকাশিত হয় কোন্ গ্রন্থটি? গ্রন্থটির রচনা ও প্রকাশকাল উল্লেখ ?

 

প্রবােধচন্দ্রিকা। গ্রন্থটির রচনাকাল ১৮১৩ খ্রীষ্টাব্দ। গ্রহটির প্রকাশকাল ১৮৩৩ খ্রীষ্টাব্দ।

 

প্রশ্ন ।। মৃত্যুঞ্জয় বিদ্যালঙ্কার ছদ্মনামে কোন্ গ্রন্থটি লেখেন?

 

“বেদান্তচন্দ্রিকা (১৮১৭ খ্রঃ)

 

 

 

রামমােহন 

 

প্রশ্ন ।। রামমােহনের যে কোনাে চারটি গ্রন্থের নাম কর ?

 

উঃ। বেদান্ত গ্রন্থ (১৮১৫ খ্রীষ্টাব্দ), বেদান্তসার (১৮১৫ খ্রীষ্টাব্দ), ঈশােপনিষৎ (১৮১৬ খ্রীষ্টাব্দ), ভট্টাচার্যের সহিত বিচার (১৮১৭ খ্রীষ্টাব্দ)।

 

 প্রশ্ন ।। রামমােহন রায় রচিত বাংলা গ্রন্থের সংখ্যা কত? 

 

উত্তর। তিরিশটি।

 

 প্রশ্ন ।। রামমােহনের গদ্যের বিশেষ গুণ কি?

 

উঃ। রামমােহনের গদ্যের গুণ হলাে সুগ্রথিত শব্দ প্রয়ােগে বাক্যগঠন। এইরূপ গদ্যে

উচ্চমানের ভাব প্রকাশ সম্ভব। 

 

প্রশ্ন ।। বেদ ও উপনিষদ-এর ওপর ভিত্তি করে লেখা রামমােহন রায়-এর দুটি গ্রন্থের নাম লেখ।

 

 উত্তর। বেদান্ত গ্রন্থ (১৮১৫), বেদান্ত সার (১৮১৫)। 

 

প্রশ্ন ।। রামমােহন রায়ের তর্কমূলক গ্রন্থের নাম লেখ। 

 

উঃ। ভট্টাচার্যের সহিত বিচার (১৮১৭), গােস্বামীর সহিত বিচার(১৮১৮), পথ্যপ্রদান (১৮১৯), কায়স্থের সহিত মদ্যপান বিষয়ক বিচার (১৮২৬)

 

প্রশ্ন ।। সহমরণ বিষয়ে প্রকাশিত রামমােহনের গ্রন্থগুলির নাম কি ?

 

উঃ।  ‘গােস্বামীর সহিত বিচার’ (১৮১৮), ‘প্রবর্তক ও নিবর্তকের সম্বাদ’ (১৮১৮)।

 

 প্রশ্ন ।।  রামমােহন সম্পাদিত বাংলা সংবাদ পত্রটির নাম কি? 

 

উ। ব্রাহ্মণ সেবধি (১৮১২)

 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস mcq

 

 

বিদ্যাসাগর 

 

 প্রশ্ন ।। ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যসাগরের লেখা প্রথম গ্রন্থটির নাম কি?

 

উঃ। বসুদেব চরিত।

 

প্রশ্ন ।। বিদ্যাসাগরের শিক্ষাবিষয়ক গ্রন্থগুলির নাম লেখ। 

 

উঃ  বোধোদয়(১৮৪৯), জীবনচরিত (১৮৫১), কথামালা (১৮৫৬) আখ্যানমঞ্জুরী(১৮৬৩ – ১৮৮৮)।

 

প্রশ্নঃ। বিদ্যাসাগরের লেখা সমাজসংস্কারমূলক রচনাগুলির নাম লেখ। 

 

উঃ। বিধবা বিবাহ চলিত হওয়া উচিত কিনা এতদ্বিষয়ক প্রস্তাব’ (প্রথম খন্ড ও দ্বিতীয় বঙ ১৮৫৫), বহুবিবাহ রহিত হওয়া উচিত কিনা এতদ্বিষয়ক প্রস্তাব (প্রথম খন্ড ১৮১, দ্বিতীয় খন্ড ১৮৫৫)। 

 

প্রশ্নঃ।। বিদগন্ত্রের সাহিত্য বিষয়ক রচনাগুলির উল্লেখ কর।

 

উঃ বেতাল পঞ্চবিংশতি (১৮৪৭ খ্রীঃ), বাদলার ইতিহাস (১৮৪৮ খ্রীঃ), শকুন্তলা (১৮৫৪ খ্রীঃ), সীতার বনবাস (১৮৬০ খ্রীঃ), ভ্রান্তিবিলাস (১৮৬৯ খ্রীঃ)।

 

প্রশ্নঃ।। বিদ্যাসাগর রচিত দুটি মৌলিক গ্রন্থের নাম করো?

 

উত্তর। সংস্কৃত ভাষা ও সাহিত্য বিষয়ক প্রস্তাব’ (১৮৫৩) ও ‘বিধবা বিবাহ চলিত হওয়া উচিত কিনা এতদ্বিষয়ক প্রস্তাব (১৮৫৫)।

 

প্রশ্ন ।। বিদ্যাসাগরের লেখা একটি গ্রন্থের নাম কর যেটি হিন্দি ভাষা থেকে অনুদিত।

 

উঃ  হিন্দি ‘বেতাল পচ্চিসী’ গ্রন্থের অনুবাদ করেন ‘বেতাল পঞ্চবিংশতি’ (১৮৪৭ খ্রীঃ) উত্তর। নামে।

 

প্রশ্ন ।। সংস্কৃত গ্রন্থ থেকে অনুদিত বিদ্যাসাগরের গ্রন্থগুলির নাম লেখ।

 

উত্তর ।

 

কালিদাসের ‘অভিজ্ঞান শকুন্তলম্ থেকে শকুন্তলা’, বাল্মীকির রামায়ণ ও ভবভূতির উত্তরামচরিত (১ম দুটি অঙ্ক) অনুসরণে সীতার বনবাস’ (১৮৬০ খ্রীঃ)

 

প্রশ্ন ।। বিদ্যাসাগর কোন্ পত্রিকার সম্পাদনা করেন?

 

উত্তর। ‘তত্ত্ববােধিনী’ পত্রিকার সম্পাদনা করেন। 

 

প্রশ্ন ।। বিদ্যাসাগরের ‘বাংলার ইতিহাস’ (১৮৪৮ খ্রীঃ) গ্রন্থটি কোন্ ইংরাজী গ্রন্থের অনুবাদ? 

 

উত্তর। মার্শম্যান-এর History of Bengal. 

 

প্রশ্ন ।। বিদ্যাসাগরের ‘জীবনচরিত’ (১৮৪৯ খ্রীঃ) কোন্ ইংরাজী গ্রন্থের অনুবাদ 

 

উত্তর। চেম্বার্স-এর Biographies. 

 

প্রশ্ন ।। বিদ্যাসাগরের ‘বােবােদয়’ (১৮৫১ খ্রীঃ) কোন ইংরাজী গ্রন্থের অনুবাদ? উত্তর। চেম্বার্স-এর Rudiments of Knowledge.

 

 প্রশ্ন ।। বিদ্যাসাগরের কথামালা (১৮৫৬ খ্রীঃ) কোন ইংরাজী গ্রন্থের অনুবাদ ? Aesops Fables. 

 

প্রশ্ন ।। বিদ্যাসাগরের ‘ভ্রান্তি বিলাস’ (১৮৬৯ খ্রীঃ) কোন্ ইংরাজী গ্রন্থের অনুবাদ। শেক্সপীয়র-এর Comedy of Errors. 

 

প্রশ্ন ।। বিদ্যাসাগর রচিত সমালােচনামূলক গ্রন্থটির নাম লেখ।

 

 উত্তর। সংস্কৃত ভাষা ও সাহিত্য বিষয়ক প্রস্তাব’ (১৮৫৩ খ্রীঃ)। 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস অক্ষয়কুমার দত্ত

 

 প্রশ্ন ।। কে কত খ্রীষ্টাব্দে অক্ষয়কুমার দত্তকে কোন্ পত্রিকার সম্পাদক নির্বাচিত করেন? 

 

উঃ। মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৮৪৩ খ্রীষ্টাব্দে তত্ত্ববােধিনী পত্রিকার সম্পাদক নির্বাচিত করেন।

 

– প্রশ্ন ।। বিজ্ঞান ও সমাজদর্শন বিষয় নিয়ে লেখা অক্ষয়কুমারের দুটি গ্রন্থের নাম লেখ। 

 

পদার্থ বিদ্যা (১৮৫৬), বাহ্যবস্তুর সহিত মানব প্রকৃতির সম্বন্ধ বিচার’ (১ম১৮৫১, ২য়-১৮৫৩ )। 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস 

 

প্রশ্ন ।। অক্ষয়কুমার দত্ত কোন্ বৈজ্ঞানিক-এর দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন।

 

 উত্তর। স্কটল্যান্ডের দার্শনিক ও বৈজ্ঞানিক আলেকজান্ডার কুম্বের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন।

 

কালীপ্রসন্ন সিংহ।

 

প্রশ্ন ।। ধর্মনীতি’ গ্রন্থটি কার লেখা? কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়? 

 

উত্তর ঃ ধর্মনীতি গ্রন্থটি অক্ষয়কুমার দত্তের লেখা। ১৮৫৬ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়।

 

প্রশ্ন ।। ভারতবর্ষীয় উপাসক সম্প্রদায়’ গ্রন্থটি কার লেখা? কটি খন্ডে বিভক্ত?

 

 উত্তর। ‘ভারতবর্ষীয় উপাসক সম্প্রদায়’ অক্ষয়কুমার দত্তের লেখা। দুটি খন্ডে বিভক্ত। ১ম- ১৮৭০ , ২য়— ১৮৮৩ খ্রীঃ।

 

প্রশ্ন ।। অক্ষয়কুমার দত্তের ভারতবর্ষীয় উপাসক সম্প্রদায়’ গ্রন্থটিতে কোন্ পাশ্চাত্য লেখকের প্রভাব আছে?

 

 উত্তর। উইলসন সাহেবের ‘Religious Sects of the Hindus’. গ্রন্থটির প্রভাব আছে। 

 

প্রশ্ন ।। অক্ষয়কুমার দত্তের ‘বাহ্য প্রকৃতির সহিত মানব প্রকৃতির সম্বন্ধ বিচার’ গ্রন্থটিতে পাশ্চত্য কোন্ লেখকের প্রভাব আছে? 

 

উত্তর। অলেকজান্ডার কুম্বের ‘Constitution of Man’ গ্রন্থের প্রভাব আছে।

 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

প্রশ্ন ।। মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ প্রদত্ত বক্তৃতা কোথায় সঙ্কলিত আছে?

 

 উঃ। ‘ব্রাহ্মধর্ম গ্রন্থ (১ম ও ২য় ১৮৫০ খ্রীঃ), জ্ঞান ও ধর্মের উন্নতি’ (১৮৯৩ খ্রীঃ), ‘পরলােক ও মুক্তি’ (১৮৯৫ খ্রীঃ) প্রভৃতি পুস্তিকায় সংকলিত আছে। 

 

প্রশ্ন ।। মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত আত্মজীবনীর নাম কি?

 

 উঃ। ‘স্বরচিত জীবনচরিত (১৮৯৮ খ্রীঃ)।

 

প্যারীচাদ মিত্র

 

। প্রশ্ন ।।। টেকচাঁদ ঠাকুর কার ছদ্মনাম ?

 

 উত্তর। প্যারীচাদ মিত্রের ছদ্মনাম। 

 

প্রশ্ন ।। প্যারীচাঁদ মিত্রের প্রবন্ধগ্রন্থগুলির নাম উল্লেখ কর। 

 

উঃ। কৃষিপাঠ (১৮৬১ খ্রীঃ), ডেভিড হেয়ারের জীবনচরিত (১৮৭৮ খ্রীঃ), এতদ্দেশীয় স্ত্রীলোেকদিগের পূর্বাবস্থা (১৮৭৯ খ্রীঃ)। 

 

প্রশ্ন ।। প্যারীচাঁদ মিত্রের সঙ্গীতবিষয়ক গ্রন্থটির নাম কি?

 

উঃ। গীতাঙ্কুর (১৮৬১ খ্রীঃ)। 

 

 

 

উঃ। ‘আলালের ঘরের দুলাল’ উপন্যাসটি মাসিক পত্রিকা’ নামে একটি ক্ষুদ্র পত্রিকায় ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হয়।

 

 প্রশ্ন ।। কালীপ্রসন্ন সিংহের ছদ্মনাম কি ছিল? 

 

উত্তর ।হুতুম।

 

 প্রশ্ন ।। কালীপ্রসন্ন সিংহ প্রতিষ্ঠিত রঙ্গমঞ্চের নাম কি? 

 

উত্তর। বিদ্যোৎসাহিনী রঙ্গমঞ্চ। , 

 

প্রশ্ন ।। কালীপ্রসন্ন সিংহ কোন্ পত্রিকার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন? 

 

উত্তর। ‘বিদ্যোসােহিনী’ পত্রিকার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। 

 

 

ঈশ্বর গুপ্ত

 

 

প্রশ্ন ।। মহাভারতের গদ্য অনুবাদ কে কবে প্রকাশ করেন?

 

 উত্তর । কালীপ্রসন্ন সিংহ (১৮৬০-৬৬ খ্রীষ্টাব্দে) প্রকাশ করেন। 

 

প্রশ্ন ।। সংবাদ প্রভাকর’ পত্রিকার সম্পাদক কে ছিলেন?

 

উঃ। ঈশ্বর গুপ্ত ছিলেন সংবাদ প্রভাকর পত্রিকার সম্পাদক। 

 

প্রশ্ন ।। বঙ্কিমচন্দ্র কোন্ কবি কে যুগসন্ধিক্ষণের কবি বলেছিলেন? 

 

উঃ। ঈশ্বর গুপ্তকে। 

 

প্রশ্ন ৬৭। ঈশ্বর গুপ্তের কয়েকটি উল্লেখযােগ্য কবিতার নাম কর।

 

 উত্তর। তপসে মাছ, পাঠা, দুর্ভিক্ষ, পৌষপার্বন, গ্রীষ্ম ইত্যাদি।

 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়

 

 • প্রশ্ন ।। রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায় এর প্রথম পুস্তকটির নাম কি?

 

উঃ।। ‘বাঙ্গালা কবিতা বিষয়ক প্রবন্ধ (১৮৫২ খ্রীঃ)। 

 

প্রশ্ন ।। পদ্মিনী উপাখ্যান’ কাব্যটি কার লেখা? কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ। রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায় এর লেখা। ১৮৫৮ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়। 

 

প্রশ্ন ।। রঙ্গলালের কর্মদেবী’ গ্রন্থটি কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ। ১৮৬২ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়।

 

প্রশ্ন ।। রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়ের কৌতুক রসের কাব্যটির নাম কি? কাব্যটি কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ।। রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়ের কৌতুক রসের কাব্যটির নাম ‘ভেক মূষিকের যুদ্ধ ১৮৫৮ খ্রীষ্টাব্দে কাব্যটি প্রকাশিত হয়। 

 

– প্রশ্ন ।। রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়-এর গ্রীক কাব্যের ইংরাজী অনুবাদ অবলম্বনে লেখা কাব্যটির নাম কি?

 

উত্তর। ‘ভেক মূষিকের যুদ্ধ’।

 

 

6প্রশ্ন ।। রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায় তার পদ্মিনী উপাখ্যান’ কাব্যের কোন গ্রন্থ সংগ্রহ করেছিলেন?

 

উত্তর। কর্ণেল টডের লেখা রাজপুত কাহিনী Annals and Antiquities of Rajasthan’ গ্রন্থ থেকে সংগ্রহ করেছিলেন।

 

প্রশ্ন ।। রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়-এর রাজপুত ইতিহাসকে কেন্দ্র করে লিখিত কাব্য দুটির নাম প্রকাশ কাল সহ লেখ।

 

উত্তর। কর্মদেবী’ (১৮৬২), শুরসুন্দরী’ (১৮৬৮)।

 

প্রশ্ন ।। ওড়িয়া কাব্য থেকে সংগৃহীত রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়-এর একটি কাব্যের নাম কর। 

 

উত্তর : ‘কাঞ্চী কাবেরী’ (১৮৭৯)।

 

প্রশ্ন ।। রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোন গ্রন্থে নীতি উপদেশমূলক কবিতা সংগৃহীত আছে? 

 

উত্তর। ‘নীতিকুসুমাঞ্জলি’ গ্রন্থে।

 

প্রশ্ন ।। কোন বাঙালী বাংলাভাষায় প্রথম কলকাতার ইতিহাস লেখেন? রচনাটির নাম কি?

 

উঃ। ‘কলিকাতা কল্পলতা’ নামক রচনায় রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথম কলকাতার। ইতিহাস লেখেন।

 

প্রশ্ন ।। রঙ্গলাল বন্দ্যোপাধ্যায়-এর মৃত্যুর পর প্রকাশিত গ্রন্থের নাম কি?

 

 উত্তর। ‘কলিকাতা কল্পলতা’।

 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস ৩

 

 

ভূদেব মুখােপাধ্যায় 

 

 

প্রশ্ন ।। ভূদেব মুখােপাধ্যায় প্রকাশিত পত্রিকাটির নাম কি?

 

উঃ। ‘শিক্ষাদর্পন’ (১৮৫৬)।

 

প্রশ্ন ।। ভূদেব মুখােপাধ্যায়-এর ইতিহাস বিষয়ক গ্রন্থগুলির নাম বল? 

 

উর। পুরাবৃত্ত সার (১৮৫৮), বাংলার ইতিহাস (১৯০৪), ইংল্যান্ডের ইতিহাস (১৮৬২) রােমের ইতিহাস (১৮৬৩)।

 

 প্রশ্ন । ভূদেব মুখােপাধ্যায়ের মৌলিক গ্রন্থটির নাম কি?

 

 উত্তর। স্বপলব্ধ ভারতবর্ষের ইতিহাস’ (১৮৯৫)।

 

প্রশ্ন । ভূদেব মুখােপাধ্যায় এর কোন্ গ্রন্থগুলি শ্রেষ্ঠ ?

 

উঃ । ভূদেব মুখােপাধ্যায়-এর পারিবারিক প্রবন্ধ (১৮৮২), সামাজিক প্রবন্ধ (১৮৯২), আচার প্রবন্ধ (১৮৯৫) শ্রেষ্ঠ।

 

প্রশ্ন ।। ভূদেব মুখােপাধ্যায়-এর শিক্ষাবিষয়ক গ্রন্থগুলির নাম লেখ।

 

উত্তর। ‘ শিক্ষা বিষয়ক প্রস্তাব (১৮৫৬), ‘প্রাকৃতিক বিজ্ঞান’ (প্রথম ও দ্বিতীয় ১৮৫৩-৫৯ খ্রীষ্টাব্দ), ক্ষেত্ৰত?’ (১৮৬২)।

 

 

বিবেকানন্দ

 

প্রশ্ন ।। বিবেকানন্দের বাংলা ভাষায় লেখা গ্রন্থের সংখ্যা কয়টি ও কি কি?

 

 উত্তর। বিবেকানন্দের লেখা গ্রন্থের সংখ্যা ৪ টি। (১) ভাববার কথা, (২) পরিব্রাজক (৩) প্রাচ্য ও পাশ্চাত্য (৪) বর্তমান ভারত।

 

 প্রশ্ন ।। বিবেকানন্দের লেখা কবিতার নাম কি?

 

 উত্তর। ‘বীরবাণী।

 

প্রশ্ন ।। বিবেকানন্দের লেখা কোন্ কোন্ গ্রন্থে কলকাতার চলতি ভাষা অনুসৃত হয়েছে? 

 

উত্তর। ‘পরিব্রাজক এবং প্রাচ্য ও পাশ্চাত্য।

 

 বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস প্রমথ চৌধুরী

 

প্রশ্ন ।। বীরবল কার ছদ্মনাম?

 

 উত্তর। বীরবল প্রমথ চৌধুরীর ছদ্মনাম।

 

 প্রশ্ন ।। প্রমথ চৌধুরী কোন পত্রিকা সম্পাদনা করেন? 

 

উত্তর। ১৯১৪ সালে সবুজ পত্র পত্রিকা সম্পাদনা করেন।

 

 প্রশ্ন ৮৯। প্রমথ চৌধুরীর লেখা কাব্য দুটির নাম লেখ।

 

 উত্তর। সনেট পঞ্চাশৎ’, ‘পদচারণা।

 

 প্রশ্ন ।। প্রমথ চৌধুরীর শ্রেষ্ঠ নিবন্ধ কোনটি? 

 

উত্তর। ‘বীরবলের হালখাতা।

 

 প্রশ্ন ।। চারইয়ারি কথা’ গল্পটি কার লেখা? 

 

উত্তর। প্রমথ চৌধুরীর লেখা।

 

 প্রশ্ন । প্রমথ চৌধুরীর প্রথম গল্পটির নাম কি? কোন্ ভাষায় লেখা ? 

 

উত্তর। ফুলদানি’। সাধুভাষায় লেখা।

 

 

অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

প্রশ্ন ।। অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভাষণ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কি নামে প্রকাশিত হয়? 

 

উত্তর। ‘বাগেশ্বরী শিল্প প্রবন্ধাবলী’ নামে প্রকাশিত হয়। 

 

প্রশ্ন ।। অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা কয়েকটি গদ্য পুস্তকের নাম লেখ। 

 

উত্তর। শকুন্তলা, ক্ষীরের পুতুল, রাজকাহিনী, ভারতশিল্প, মারুতির পুঁথি, নতুন ধরনের যাত্রাপালা।

 

প্রশ্ন ।। অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা দুটি পুস্তকের নাম কর যে দুটি রাণী মহলানবিশের শ্রুতি লিখন।

 

উঃ। ঘরােয়া, জোড়াসাঁকোর ধারে।

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস সাময়িক পত্র

 

প্রশ্ন ।। ভারতে প্রকাশিত প্রথম মুদ্রিত সংবাদপত্র কোনটি? এটি কত খ্রীষ্টাব্দে কে প্রকাশ  করেন?

 

উত্তর। ১৭৮০ খ্রীষ্টাব্দে ২৯শে জানুয়ারী প্রকাশিত হিকির ‘বেঙ্গল গেজেট’ ভারতে মুদ্রিত। প্রথম সংবাদপত্র।

 

প্রশ্ন ।। বাংলা ভাষায় প্রথম প্রকাশিত মাসিক পত্রের নাম কি? কত খ্রীষ্টাব্দে এটি প্রথম প্রকাশিত হয়?

 

উর। বাংলা ভাষায় প্রথম প্রকাশিত মাসিক পত্রের নাম ‘দিগদর্শন’। ১৮১৮ খ্রীষ্টাব্দের এপ্রিল মাসে প্রথম প্রকাশিত হয়।

 

প্রশ্ন ।। দিগদর্শন’ পত্রিকার সম্পাদকের নাম কি?

 

উর। শ্রীরামপুর মিশনের পাদ্রী জোসুয়া মার্শম্যানের পুত্র জন ক্লার্ক মার্শম্যান। 

 

প্রশ্ন ।। জে. সি. মার্শম্যানের সম্পাদনায় শ্রীরামপুর মিশন থেকে কত খ্রীষ্টাব্দে কোন পত্রিকা প্রকাশিত হয়?

 

উঃ। ১৮১৮ খ্রীষ্টাব্দে সমাচার দর্পণ’ প্রকাশিত হয়। 

 

প্রশ্ন ।। ‘সমাচার দর্পণ’ পত্রিকাটি কত দিন অন্তর প্রকাশিত হত ?

 

সমাচার দর্পণ’ পত্রিকাটি ছিল সাপ্তাহিক পত্রিকা।

 

প্রশ্ন ।। কোন সময় থেকে সমাচার দর্পণ’ পত্রিকাটি ইংরাজী ও বাংলা দুই ভাষায় প্রকাশিত হতে থাকে?

 

উঃ।।১৮২৯ খ্রীষ্টাব্দ থেকে সমাচার দর্পণ পত্রিকাটি ইংরাজী ও বাংলা দুই ভাষায় প্রকাশিত হতে থাকে।

 

পত্রিকাটির নাম কি? এটি কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

প্রশ্ন ১০২। গঙ্গাকিশাের ভট্টাচার্যের পত্রিকাটির নাম কি? এটি কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ। ১৮১৮ খ্রীষ্টাব্দের জুন মাসে প্রকাশিত হয় গঙ্গাকিশাের ভট্টাচার্যের ‘বাঙ্গাল গেজেট’ নামক সাপ্তাহিক পত্রিকা।

 

প্রশ্নঃ।।  ‘ব্রাহ্মণ সেবধি’ পত্রিকাটি কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়? পত্রিকার সম্পাদক কে ছিলেন?

 

উঃ। ১৮২১ খ্রীষ্টাব্দে ব্রাহ্মণ সেবধি’ পত্রিকাটি প্রকাশিত হয়। রামমােহন রায় পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন।

 

প্রশ্ন ।। রামনােহন ভবানী চরণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সহায়তায় কোন পত্রিকা প্রকাশ করেন?

 

উরে । রামমোহন ভবানী চরণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সহায়তায় সম্বাদ কৌমুদী’ (১৮২১ গ্রীষ্টাব্দের ৪ঠা ডিসেম্বর) প্রকাশ করেন।

 

 প্রশ্ন ।।পশ্বাবলী কি?

 

উঃ। ১৮২২ খ্রীষ্টাব্দের ফেব্রুয়ারী মাসে কলিকাতা-স্কুলবুক-সােসাইটি কর্তৃক সম্পাদিত জীবজন্তুর বিবরণমূলক একটি মাসিক পত্রিকা।

 

প্রশ্ন ।। সম্বাদ তিমির নাশক’ কোন শ্রেণীর পত্রিকা? কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ। ১৮২৩ খ্রীষ্টাব্দে রক্ষণশীল সম্প্রদায়ের মুখপত্র সম্বাদ তিমির নাশক।

 

 

প্রশ্ন ।। ‘বঙ্গদূত’ পত্রিকাটির সম্পাদক কে? কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ। ‘বঙ্গদূত’ পত্রিকাটির সম্পাদক নীলরতন হালদার। পত্রিকাটি ১৮২৯ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়।

 

প্রশ্নঃ।। ‘বঙ্গদূত’ পত্রিকাটিতে কোন্ কোন্ বিষয় নিয়ে আলােচনা হত ?

 

উঃ। রাজনীতি ও অর্থনীতি নিয়ে আলােচনা হত।

 

 প্রশ্ন ।। ইয়ং বেঙ্গল গােষ্ঠী কর্তৃক প্রকাশিত পত্রিকাটির নাম কি?

 

 উত্তর। ‘জ্ঞানান্বেষণ। 

 

 

প্রশ্ন ।। ‘বিজ্ঞান সেবধি’ পত্রিকাটি কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়? এতে কোন বিষয়ের প্রবন্ধ প্রকাশিত হত?

 

উত্তর। ১৮২৩ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হত। বিজ্ঞান সেবধি’ পত্রিকাতে বিজ্ঞান-বিষয়ক প্রবন্ধ প্রকাশিত হত।

 

প্রশ্ন ।। বাংলা ভাষায় প্রকাশিত প্রথম দৈনিক পত্রিকা কোনটি ?

 

 উত্তর। সংবাদ প্রভাকর’।

 

প্রশ্ন ।। ‘বিবিধার্থ সংগ্রহ’ পত্রিকাটির সম্পাদক কে? এটি কত খৃষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ।  ১৮৫১ খ্রীষ্টাব্দে রাজেন্দ্রলাল মিত্রের সম্পাদনায় প্রকাশিত হয় বিবিধার্থ সংগ্রহ পত্রিকা।

 

প্রশ্ন ।। বিবিধার্থ সংগ্রহ’ পত্রিকাটি কতদিন অন্তর প্রকাশিত হত?

 

উঃ। ‘বিবিধার্থ সংগ্রহ’ পত্রিকাটি ছিল মাসিক পত্রিকা।

 

প্রশ্ন ।। সােমপ্রকাশ পত্রিকাটি কবে প্রকাশিত হয়? পত্রিকাটির সম্পাদক কে ছিলেন? পত্রিকাটিতে কোন বিষয়ের আলােচনা প্রকাশিত হত ?

 

উত্তর।। ১৮৫৮ খ্রীষ্টাব্দে দ্বারকানাথ বিদ্যাভূষণের সম্পাদনায় ‘সােম প্রকাশ’ পত্রিকাটি প্রকাশিত হয়। পত্রিকাটিতে রাজনীতি বিষয়ে আলােচনা প্রকাশিত হত। 

 

প্রশ্নঃ।।‘বঙ্গদর্শন’ পত্রিকাটি কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়? 

 

উঃ। ১৮৭২ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়।

 

প্রশ্নঃ।। ‘জ্ঞানান্বেষণ’ ও ‘সম্বাদভাস্বর পত্রিকা দুটির সম্পাদকের নাম কি?

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস  প্ৰশ্ন

গৌরীশংকর।

 

প্রশ্ন।।ভবানী চরণ বন্দ্যোপাধ্যায় রামমােহনের সংস্পর্শ ত্যাগ করে কোন পত্রিকা প্রকাশ করেন?

 

উঃ।সমাচার চন্দ্রিকা (১৮২২ খ্রীষ্টাব্দের ৫ই মার্চ)। 

 

প্রশ্নঃ।। ‘সংবাদ প্রভাকরের’ দৈনিক সংস্করণের কাল উল্লেখ কর ?

 

উঃ।  ১৮৩৯ খ্রীষ্টাব্দের ১৪ ই জুন। 

 

প্রশ্নঃ।। সবুজ পত্র কবে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ।  ১৯১৪ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়। 

 

প্রশ্নঃ।। বাংলায় প্রথম সচিত্র মাসিক পত্রিকার নাম কি? পত্রিকাটির সম্পাদক কে ছিলেন? 

 

উঃ।। রাজেন্দ্রলাল মিত্র সম্পাদিত ‘বিবিধার্থ সংগ্রহ’ (১৮৫৮) 

 

প্রশ্নঃ।।বাঙালীর সম্পাদনায় প্রকাশিত প্রথম সাময়িক পত্রের নাম কি?

 

উঃ। গঙ্গাকিশাের ভট্টাচার্য কর্তৃক বাঙ্গাল গেজেট’। 

 

প্রশ্নঃ।। রবীন্দ্রনাথ সম্পাদিত কয়েকটি পত্রিকার নাম লেখাে।

 

উঃ।  ভারতী, তত্ত্ববােধিনী, সাধনা ও বঙ্গদর্শন (৪র্থ পর্যায়)। 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্র কোন পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন ?

 

উঃ। ‘বঙ্গদর্শন’ পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন। 

 

প্রশ্নঃ।।‘বঙ্গদর্শন’ পত্রিকা লিখতেন এমন

কয়েকজনের নাম কর ?

 

উঃ।।  রামকৃষ্ণ মুখােপাধ্যায়, রামপ্রসাদ সেন, হরপ্রসাদ শাস্ত্রী প্রভৃতি নবীন লেখকগ ‘বঙ্গদর্শন’ পত্রিকায় লিখতেন।

 

 প্রশ্ন ।। উনিশ শতকের রেনেসাঁস’ কাকে বলে।

 

উঃ। বঙ্কিমচন্দ্রর নেতৃত্বে উনিশ শতকের বাঙালির যে জাগরণ হয়েছিল তাকে

সাহিত্যের ইতিহাসে বাঙালির ঊনিশ শতকের ‘রেনেসাঁস’ বলে।

 

 প্রশ্ন ।। প্রবন্ধ কাকে বলে?

 

উঃ। সাহিত্য, দর্শন, ইতিহাস, বিজ্ঞান প্রভৃতি অবলম্বনে যে বস্তু প্রধান গদ্য নিবন্ধ রচিত হয় তাকে প্রবন্ধ বলে। অর্থাৎ প্রবন্ধে যুক্তি-বুদ্ধির বন্ধন থাকে। 

 

প্রশ্নঃ।। প্ৰবন্ধ কয় প্রকার ও কি কি?

 

উঃ। প্রবন্ধ দুই প্রকার। বস্তুপ্রধান প্রবন্ধ ও ব্যক্তিগত প্রবন্ধ।

 

 প্রশ্ন ।। বঙ্কিমচন্দ্রের পর কে ‘বঙ্গদর্শন’ পত্রিকা সম্পাদনা করেন।

 

উঃ। সঞ্জীবচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।

 

 প্রশ্ন ।। বঙ্কিমচন্দ্র রচিত কয়েকটি প্রবন্ধ গ্রন্থের উল্লেখ কর। 

 

উঃ। বিজ্ঞান রহস্য (১৮৭৫), বিবিধপ্রবন্ধ (১ম ও ২য় ভাগ), কৃষ্ণচরিত্র (১৮৮৬) ও সাম্য (১৮৭৯)।

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্র কোন কোন পাশ্চাত্য দার্শনিকের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন।

 

উঃ। প্রথম জীবনে ইউরােপীয় দার্শনিক কেঁতের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন। পরে রুশো, বেন্থাম ও মিলের সামাজিক মতবাদের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন।

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের সমাজবাদ বিষয়ক ও ধর্মতত্ত্ব বিষয়ক প্রবন্ধগুলির নাম লেখ।

 

 উঃ।।বঙ্কিমচন্দ্রের সমাজবাদ বিষয়ক প্রবন্ধ সাম্য’ ও ‘বঙ্গদেশের কৃষক। ধর্মতত্ত্ব বিষয়ক প্রবন্ধ ‘কৃষ্ণচরিত্র।

 

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের সাহিত্যধর্মী প্রবন্ধগুলির নাম উল্লেখ কর।

 

উত্তর।  বঙ্কিমচন্দ্রের সাহিত্যধর্মী প্রবন্ধগুলি হল লােকরহস্য ও কমলাকান্তের দপ্তর। 

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের সাহিত্য তত্ত্ব ও সমালােচনামূলক প্রবন্ধগুলির নাম উল্লেখ কর। 

 

উঃ। গীতিকাব্য, বিদ্যাপতি ও জয়দেব, উত্তর চরিত, শকুন্তলা মিরান্দা ও দেসদিমােনা। ।

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের প্রবন্ধ রচনার মূলে কী উদ্দেশ্য ছিল ? 

 

উঃ। বঙ্কিমচন্দ্র জ্ঞান-বিজ্ঞান ও বিবিধ বিষয়ে প্রবন্ধ রচনা করে বাঙালি জাতিকে চিন্তা ও মননশীলতায় দীক্ষিত করতে চেয়েছিলেন। বাঙালিজাতি,বাংলা ভাষা ও স্বাদেশিক ঐতিহ্য সম্বন্ধে জিজ্ঞাসু ও সচেতন করাও তার অন্যতম উদ্দেশ্য  ছিল।

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাসগুলির শ্রেণী বিভাগ কর।

 

(১) ইতিহাস ও রােমান্স ধৰ্মী উপন্যাস। (২) তত্ত্বমূলক ও দেশাত্ববােধক উপন্যাস। (৩) সামাজিক ও গার্হস্থ্য ধর্মী উপন্যাস।

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের চারটি ইতিহাস ও রােমান্সধর্মী উপন্যাসের নাম লেখ।

 

উঃ। দুর্গেশনন্দিনী, কপালকুন্ডলা, চন্দ্রশেখর ও রাজসিংহ। 

 

প্রশ্নঃ।।বঙ্কিমচন্দ্রের খাঁটি ঐতিহাসিক উপন্যাসের নাম কি? 

 

উঃ।রাজসিংহ। 

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের দুটি তত্ত্বমূলক উপন্যাসের নাম লেখ।

 

উঃ। আনন্দমঠ ও দেবী চৌধুরানী

 

প্রশ্নঃ।।বঙ্কিমচন্দ্রের প্রথম বাংলা উপন্যাসের নাম কি? কত খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়? 

 

উঃ।বঙ্কিমচন্দ্রের লেখা প্রথম বাংলা উপন্যাস দুর্গেশ নন্দিনী (১৮৬৫)।

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের দুটি তত্ত্বমূলক উপন্যাসের নাম লেখ।

 

উঃ। বঙ্কিমচন্দ্রের দুটি তত্ত্বমূলক উপন্যাসের নাম হল আনন্দমঠ ও দেবীচৌধুরাণী।

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের দুটি সামাজিক উপন্যাসের নাম লেখ।

 

উত্তর। বিষবৃক্ষ (১৮৭৩) ও কৃষ্ণকান্তের উইল (১৮৭৮) বঙ্কিমচন্দ্রের দুটি সামাজিক উপন্যাস।

 

প্রশ্ন ।। বঙ্কিমচন্দ্রের ‘রজনী’ উপন্যাসটি কোন পাশ্চাত্য উপন্যাসের প্রভাবে রচিত।

 

উঃ। ‘রজনী’ উপন্যাসটি ইংরেজ ঔপন্যাসিক বুলওয়ার লিটন রচিত ‘The last Days of Pompeii’ উপন্যাসের প্রভাবে রচিত।

 

প্রশ্নঃ।। বঙ্কিমচন্দ্রের হাস্যরসাত্মক রচনাগুলি কোন্ কোন্ গ্রন্থে সংকলিত আছে? 

 

উঃ। লােকরহস্য (১৮৭৫), কমলাকান্তের দপ্তর (১৮৭৫), ও মুচিরাম গুঁড়ের জীবনচরিত (১৮৮৪) এই গ্রন্থত্ৰয়ে বঙ্কিমচন্দ্রের হাস্যরসাত্মক রচনাসমূহ সংকলিত আছে।

 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস বিহারীলাল চক্রবর্তী

 

প্রশ্নঃ।। ভােরের পাখি’ কাকে বলা হয়?

 

উঃ। বিহারীলাল চক্রবর্তীকে ভােরের পাখি’ বলা হয়।

 

প্রশ্নঃ। ‘সাধের আসন’ কাব্যটি কার লেখা? কাব্যটি কাকে উদ্দেশ্য করে লেখা। 

 

উঃ। সাধের আসন’ কাব্যটি বিহারীলাল চক্রবর্তীর লেখা। জ্যোতিরিন্দ্র নাথ ঠাকুরের পত্নী কাদম্বরী দেবীকে উদ্দেশ্য করে কাব্যটি লেখা। 

 

প্রশ্নঃ। ‘বঙ্গসুন্দরী’ কাব্যগ্রন্থ কার লেখা? কত সালে প্রকাশিত ?

 

উঃ।  ‘বঙ্গসুন্দরী’ (১৮৭০) বিহারীলাল চক্রবর্তীর লেখা।

 

প্রশ্নঃ।।  ‘বন্ধুবিয়ােগ’ কার লেখা? কত সালে প্রকাশিত ?

 

উঃ। বিহারীলাল চক্রবর্তীর লেখা ‘বন্ধু বিয়ােগ ১৮৭০ সালে প্রকাশিত।

 

প্রশ্নঃ।। ‘প্রেমপ্রবাহিনী’ কার লেখা? কত সালে প্রকাশিত ?

 

প্রশ্নঃ।। ‘প্রেমপ্রবাহিনী’ (১৮৭১) বিহারীলাল চক্রবর্তীর। 

 

প্ৰশ্ন।। ‘বাউল বিংশতি’ কাব্যগ্রন্থটি কার লেখা ও কত সালে প্রকাশিত ? 

 

উঃ। বিহারিলাল চক্রবর্তীর লেখা ‘বাউল বিংশতি’ ১২৯ প্রকাশিত। 

 

প্রশ্নঃ।। বিহারীলালের শ্রেষ্ঠ কাব্য কোনটি ? 

 

উঃ। বিহারীলালের শ্রেষ্ঠ কাব্য সারদামঙ্গল’ (১৮৭৯)।

 

 

হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়

 

প্রশ্নঃ।।হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় এর প্রথম কাব্য কোনটি ? 

 

উঃ। হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় এর প্রথম কাব্য ‘ চিন্তাতরঙ্গিণী’ (১৮৬১)। 

 

প্রশ্নঃ।। হেমচন্দ্রের অখ্যানকাব্য কোনটি ?

 

উঃ। হেমচন্দ্রের অখ্যানকাব্য ‘বীরবাহু’ (১৮৬৪)। 

 

প্রশ্নঃ।। হেমচন্দ্রের ‘ চিন্তাতরঙ্গিণী’ কাব্য কোন্ ঘটনা অবলম্বনে রচিত? 

 

উঃ। হেমচন্দ্রের ‘ চিত্তাতরঙ্গিনী’ কাব্যটি প্রতিবেশী এক বন্ধুর আত্মহত্যার ঘটনা অবলম্বনে রচিত।

 

প্রশ্ন।।  ‘বীরবাহু’ কাব্যটি কার লেখা?

 

উঃ। হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়-এর লেখা বীরবাহু (১৮৬৪)। 

 

প্রশ্নঃ।। ছায়াময়ী কাব্যটি কার লেখা? পাশ্চাত্য কোন লেখকের কোন গ্রন্থের অনুকরণে রচিত?

 

উঃ।। ‘ছায়াময়ী ‘ছায়াময়ী’ (১৮৭০) হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় এর লেখা।

 দান্তের ‘Divine Comedy’-র অনুকরণে রচিত হয়।

 

 প্রশ্নঃ।। হেমচন্দ্রের মহাকাব্য কোনটি ?

 

উঃ।। হেমচন্দ্রের মহাকাব্য বৃত্রসংহার (দুই খণ্ডে ১৮৭৫ ও ১৮৭৭)।

 

প্রশ্নঃ।।  হেমচন্দ্রের ‘আশাকানন কোন জাতীয় কাব্য? 

 

উঃ। হেমচন্দ্রের আশাকানন’ (১৮৭৬) রূপককাব্য। 

 

প্রশ্নঃ।। বৃত্রসংহার মহাকাব্যের উৎস কি?

 

উঃ। হেমচন্দ্রের ‘বৃত্রসংহার’ মহাকাব্যের উৎস পুরাণ। 

 

প্রশ্নঃ।।হেমচন্দ্রের রচিত গীতিকাব্যগুলির নাম কি? 

 

উঃ। হেমচন্দ্রের রচিত গীতিকাব্যগুলি হল ‘কবিতাবলী’— (প্রথম ও দ্বিতীয় খণ্ড ১৮৭০ ও ১৮৮০) এবং চিত্তবিকাশ’ (১৮৯৮)।

 

প্রশ্নঃ।। হেমচন্দ্র শেকসপীয়রের কোন্ কোন্ নাটক বাংলায় অনুবাদ করেছিলেন? 

 

উঃ। শেকসপীয়রের ‘Romeo and Juliet’ এবং ‘Tem Pest’-র অবলম্বনে ‘রােমিও জুলিয়েত’ এবং ‘নলিনী বসন্ত’ লেখেন।

 

 

নবীন চন্দ্র সেন 

 

প্রশ্ন ।। নবীন চন্দ্র সেন লিখিত উপন্যাসটির নাম কি?

 

 উত্তর। নবীন চন্দ্র সেন লিখিত উপন্যাসটির নাম ভানুমতী (১৯০০)। 

 

প্রশ্ন ।। “The Mahabarata of the nineteenth Century” । কে এই উক্তি করেছিলেন? এখানে কোন বইটির কথা বলা হয়েছে।

 

উত্তর। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় নবীন চন্দ্র সেনের ত্রয়ী’ কাব্যকে বিদ্রুপ করে এই উক্তি করেছিলেন।

 

প্রশ্ন ।। New essays in Criticism’-কোন বই এর প্রসঙ্গে এই উক্তি কে করেছিলেন?

 

উত্তর। আচার্য ব্রজেন্দ্রনাথ শীল নবীনচন্দ্রের ত্রয়ী’ কাব্যের প্রশংসা করে এই উক্তি করেছিলেন।

 

প্রশ্ন ।। নবীনচন্দ্র সেন কে কোন শ্রেণীর কবি বলা হয় ? 

 

উত্তর। গীতিকবি বলা হয়।

 

প্রশ্ন ।। ‘ত্রয়ী’ কাব্য তিনটি কি কি?

 

উঃ। রৈবতক, কুরুক্ষেত্র ও প্রভাস।

 

 

প্রশ্নঃ  । রৈবতক’ কাব্যের বিষয় বস্তু কি ?

 

উঃ। রৈবতক’ কাব্যের বিষয় বস্তু হল অর্জুন-সুভদ্রার বিবাহ। 

 

প্রশ্নঃ।। প্রভাস’ কাব্যটির বিষয়বস্তু কি?

 

উঃ। ‘প্রভাস’ কাব্যটির বিষয়বস্তু যদুবংশ ধ্বংস ও কৃষ্ণের দেহত্যাগ।

 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস মধুসূদন দত্ত

 

প্রশ্নঃ।। মেঘনাদ বধ কাব্যকে ব্যঙ্গ করে কে কোন কাব্য লেখেন 

 

উঃ।। জগদ্বন্ধু ভদ্র ছুচ্ছুন্দরী বধ’ নামে কাব্য লেখেন।

 

 

প্রশ্নঃ।।মধুসূদন দত্তের প্রথম কাব্য কোনটি ? কত সালে প্রকাশিত হয়?

 

উঃ। মধুসূদন এর প্রথম কাব্য ‘তিলােত্তমা সম্ভব’ কাব্য ১৮৬০ সালে প্রকাশিত হয়।

 

প্রশ্নঃ।। কোন্ কাব্যে মধুসূদন প্রথম অমিত্রাক্ষর ছন্দ ব্যবহার করলেন? কাব্যটির উৎস কী? 

 

উঃ। মধুসূদন তিলােত্তমা সম্ভব’ কাব্যে সর্বপ্রথম অমিত্রাক্ষর ছন্দ ব্যবহার করেন। কাব্যটির উৎস পৌরাণিক উপাখ্যান সুন্দ-উপসুন্দ-তিলােত্তমার কাহিনী।

 

প্রশ্নঃ।। ‘মেঘনাদ বধ কাব্যটি কত সালে রচিত? 

 

উঃ। ১৮৬২ সালে রচিত। 

 

প্রশ্নঃ।। মধুসূদন দত্তের ইংরাজী কাব্যগ্রন্থের নাম কি? 

 

উঃ। মধুসূদন দত্তের ইংরাজী কাব্যগ্রন্থের নাম ‘The Captive Ladie (১৮৪৯)।

 

প্রশ্নঃ।। মধুসূদনের ‘তিলােত্তমা সম্ভব’ কাব্যটি প্রথম কোথায় প্রকাশিত হয়?

 

উঃ।  তিলােত্তমা সম্ভব’ কাব্যের প্রথম দুটি সর্গ রাজেন্দ্রলাল মিত্রের ‘বিবিধার্থ সংগ্রহ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। 

 

প্রশ্নঃ।। ‘তিলােত্তমা’ সম্ভব কাব্যের কাহিনী কোথা থেকে গৃহীত? 

 

উঃ। তিলােত্তমা সম্ভম কাব্যের কাহিনী মহাভারত থেকে গৃহীত। 

 

প্রশ্নঃ।। মধুসূদন রচিত পত্রকাব্যটির নাম কি? 

 

উঃ।মধুসূদনের পত্রকাব্যটির নাম ‘বীরাঙ্গনা’ (১৮৬২)। 

 

প্রশ্নঃ।।‘মেঘনাদবধ কাব্যের কাহিনী কোথা থেকে গৃহীত? 

 

উঃ। ‘মেঘনাদবধ কাব্যের কাহিনী রামায়ণ থেকে গৃহীত। 

 

প্রশ্নঃ। ‘বীরাঙ্গনা’ কাব্য পাশ্চাত্য কোন কাব্যের প্রভাবে রচিত হয়? 

 

উঃ।ওভিদের ‘এপিস্টলস্ অব হিরােইন’ কাব্যের প্রভাবে রচিত। 

 

প্রশ্নঃ।। মধুবদনের সর্বশেষ কাব্যের নাম কি?

 

উঃ। চতুর্দশপদী কবিতাবলী (১৮৬৬)  মধুসূদনের সর্বশেষ কাব্য। 

 

প্রশ্নঃ।। মধুসুদন কোন নাটকটি লিখে বাংলা সাহিত্যে পদার্পন করলেন? 

 

উঃ।  শর্মিষ্ঠা’ (১৮৫৯) নাটকটি লিখে বাংলা সাহিত্যে পদার্পণ করলেন।

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

প্রশ্নঃ।।রবীন্দ্রনাথের প্রথম কবিতার নাম কি?

 

উঃ।‘ হিন্দু মেলার উপহার’ (১৮৭৫)।

 

প্রশ্নঃ।।ভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলী’ কোন কবিতার অনুকরণে রচিত?

 

উঃ। বৈষ্ণব কবিতার ব্রজবুলির অনুকরণে রচিত।

 

প্রশ্নঃ।। তত্ত্ববােধিনী’ পত্রিকায় প্রকাশিত রবীন্দ্রনাথের প্রথম কবিতা কোনটি?

 

উঃ। ১২৮১ বঙ্গাব্দে প্রকাশিত অভিলাষ’ কবিতাটি।

 

প্রশ্নঃ।। কোন্ সময়টি কে রবীন্দ্রনাথের কাব্যজীবনের শৈশব পর্ব বলা হয়।

 

উঃ। ১৮৭৮ থেকে ১৮৮১ খ্রীষ্টাব্দ পর্যন্ত রবীন্দ্রনাথের কাব্যজীবনের শৈশব পর্ব।

 

প্রশ্নঃ।। রবীন্দ্র কাব্যের উন্মেষ পর্ব কোন সময়টি কে বলা হয়?

 

উঃ।। ‘সন্ধাসঙ্গীত’ (১৮৮২) থেকে ‘কড়িওকোমল’ (১৮৮৬) এই চারবৎসর সময়কে উন্মেষপর্ব বলা হয়।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্র কাব্যে ঐশ্বর্য পর্ব কোন সময়কে ধরা হয় ?

 

 উত্তর। মানসী (১৮৯০) থেকে চৈতালী (১৮৯৬) পর্যন্ত রবীন্দ্র কাব্যে ঐশ্ব পর্ব।

 

 প্রশ্ন ।। গীতাঞ্জলির ইংরাজী অনুবাদের নাম কি?

 

 উত্তর। গীতাঞ্জলির ইংরাজী অনুবাদের নাম “Song Offerings”.

 

প্রশ্নঃ।। কোন কাব্যের জন্য রবীন্দ্রনাথ নােবেল পুরস্কার পান?

 

 উত্তর।। গীতাঞ্জলি’ কাব্যের জন্য রবীন্দ্রনাথ নােবেল পুরস্কার পান।

 

 

 প্রশ্ন ।। রবীন্দ্র সাহিত্যে আধ্যাত্মিক পর্ব কোন পর্বটিকে বলা হয় ? 

 

উত্তর। ‘গীতাঞ্জলি’ পর্বকে আধ্যাত্মিক পর্ব বলা হয়।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের সমালােচনামূলক প্রবন্ধ সাহিত্যগুলির নাম লেখ। 

 

উত্তর। প্রাচীন সাহিত্য (১৯০৭), সাহিত্য (১৯০৭), আধুনিক সাহিত্য ,লোক সাহিত্য (১৯০৭), সাহিত্যের পথে (১৯৩৬), সাহিত্যের স্বরূপ (১৩৫০)।

 

 প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের রাজনীতি, সমাজনীতি ও শিক্ষা বিষয়ক প্রবন্ধগুলির নাম লেখ। 

 

উত্তর। আত্মশক্তি (১৯০৫), ভারতবর্ষ (১৯০৬), শিক্ষা (১৯০৮), রাজাপ্রজা (১৯০৮), স্বদেশ (১৯০৮), পরিচয় (১৯১৬), কালান্তর (১৯৩৭), সততা সংকট (১৯৪১)।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের ধর্ম, দর্শন ও আধ্যাত্মিক বিষয়ক প্রবন্ধের নাম লেখ।

 

 উত্তর। ধর্ম (১৯০৯), শান্তিনিকেতন (১৯০৯-১৯১৬), মানুষের ধর্ম (১৯৩৩)।

 

 

প্রশ্নঃ।  রবীন্দ্রনাথের কয়েকটি ব্যক্তিগত প্রবন্ধের নাম লেখ। 

 

উঃ। পঞ্চভূত (১৮৯৭), বিচিত্র প্রবন্ধ (১৯০৭), লিপিকা (১৯২২) প্রভৃতি।

 

প্রশ্নঃ।। রবীন্দ্রনাথের কয়েকটি পত্রসাহিত্যের নাম লেখ।

 

উঃ। যুরােপ প্রবাসীর পত্র। (১৮৮১),য়ুরােপ যাত্রীর ডায়েরী (১৮৯১-৯৩), জীবন স্মৃতি (১৯১২), জাপানযাত্রী (১৯১৯), রাশিয়ার চিঠি (১৯৩১), পথের সঞ্চয় (১৯৩৯), ছেলেবেলা (১৯৪০), ছিন্নপত্র (১৯১২)প্রভৃতি।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের কোন্ উপন্যাসটিকে ‘মহাকাব্যিক উপন্যাস বলা হয় ? 

 

উত্তর। রবীন্দ্রনাথের ‘গােরা’ উপন্যাসটিকে মহাকাব্যিক উপন্যাস বলা হয়।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের লিখিত প্রথম উপন্যাসটির নাম কি?

 

 উত্তর। রবীন্দ্রনাথের প্রথম উপন্যাসটির নাম ‘করুণা’ (১২৮৪)।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের লেখা ঐতিহাসিক উপন্যাস কোনটি? 

 

উত্তর। রবীন্দ্রনাথের লেখা ঐতিহাসিক উপন্যাসটি হল ‘বউ ঠাকুরানীর হাট ‘ (১৮৮৩) ও রাজর্ষি (১৮৮৭)। 

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথ রচিত দু’টি রােমান্স ধর্মী উপন্যাসের নাম লেখ।

 

উঃ। চতুরঙ্গ (১৯১৬) ও শেষের কবিতা (১৯২৯) উপন্যাস দুটি হল রােমান্সধর্মী

উপন্যাস।

 

 প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের দুটি সামাজিক উপন্যাসের নাম লেখ।

 

উঃ।‘ঘরে বাইরে’ (১৯১৬), চার অধ্যায়’ (১৯৩৪)। 

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথ কোন্ উপন্যাসে সন্ত্রাসবাদের কথা আলােচনা করেছেন?

 

 উঃ। রবীন্দ্রনাথ চার অধ্যায় (১৯৩৪) উপন্যাসে সন্ত্রাসবাদের কথা আলােচনা

করেছেন।

 

 প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথ ‘রাজর্ষি’ উপন্যাস অবলম্বনে কোন নাটক লেখেন?

 

উঃ।। ‘রাজর্ষি’ উপন্যাস অবলম্বনে ‘বিসর্জন’ নাটক লেখেন। 

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের আত্মজীবনীমূলক দুটি গ্রন্থের নাম লেখ।

 

 উঃ । জীবন স্মৃতি’ (১৯১২) ও ‘ছেলেবেলা’ (১৯৪০)।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের লেখা প্রথম ছােটগল্পটি কি এবং কোন পত্রিকায় প্রকাশিত হয় ? 

 

উঃ। রবীন্দ্রনাথের লেখা প্রথম ছােট গল্প ‘ভিখারিনী’ ভারতী পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। 

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের চারটি জীবনীগ্রন্থের নাম লেখ ?

 

উঃ। রবীন্দ্রনাথের চারটি জীবনীগ্রন্থ হল চরিত্র পূজা, ভারত পথিক রামমােহন, মহাত্মা গান্ধী, বুদ্ধদেব।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের ছােট গল্পগুলি কোন গ্রন্থে সংকলিত? 

 

 উত্তর। রবীন্দ্রনাথের ছােটগল্পগুলি ‘গল্পগুচ্ছ’র তিনখণ্ডে সংকলিত।

 

প্রশ্নঃ।। রবীন্দ্রনাথ-এর প্রথম নাটক কোনটি?

 

উঃ। ‘বাল্মীকি প্রতিভা’ (১৮৮১)।

 

প্রশ্নঃ।।রবীন্দ্রনাথের একটি রূপক সাংকেতিক নাটকের নাম লেখ। 

 

উঃ। রক্তকরবী (১৯২৬)।

 

প্রশ্নঃ।। রবীন্দ্রনাথের একটি কৌতুক নাটকের নাম লেখ।

 

উত্তর। ‘গােড়ায় গলদ’ (১৯২৮)।

 

 

প্রশ্নঃ।   রবীন্দ্রনাথের একটি নৃত্যনাট্যের নাম লেখ

 

 উত্তর। চিত্রাঙ্গদা (১৮৯২)।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের লিখিত গদ্য ছন্দের দুটি কাব্যের নাম লেখ।

 

 উত্তর। পুনশ্চ (১৩৩৯), শ্যামলী (১৩৪৩)।

 

প্রশ্ন ।। ‘গােড়ায় গলদ’ নাটকটি অন্য কি নামে অভিনীত হয়? 

 

উত্তর। ‘গােড়ায় গলদ নাটকটি ১৯২৮ সালে ‘শেষরক্ষা’ নামে অভিনীত হয়।

 

 প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের কয়েকটি নিয়মানুগ নাটকের নাম লেখ। 

 

উত্তর। রাজা ও রানী (১৮৮৯), বিসর্জন (১৮৯০), মালিনী (১৮৯৬), মুকুট

(১৯০৮), প্রায়শ্চিত্ত (১৯৯০)। 

 

প্রশ্ন ।। ‘প্রায়শ্চিত্ত’ নাটক ভেঙে রবীন্দ্রনাথ কোন্ নাটকটি রচনা করেন?

 

 উত্তর। ‘প্রায়শ্চিত্ত’ নাটক ভেঙে রবীন্দ্রনাথ ‘পরিত্রাণ’ নাটক রচনা করেন

 

। প্রশ্ন ।। মুক্তধারা নাটকের মূলসুর কি?

 

 উত্তর। আধুনিক জীবনের সামাজিক, রাষ্ট্রিক ও অর্থনৈতিক সমস্যা হল মুক্তধারা

নাটকের মূলসুর।

 

 প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের একটি রূপক নাট্যের নাম লেখ। 

 

উত্তর। অচলায়তন (১৯১২)।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের একটি ভ্রমণ কাহিনী বিষয়ক রচনার নাম লেখ। 

 

উত্তর। রাশিয়ার চিঠি (১৯৩১)।

 

প্রশ্ন ।। রবীন্দ্রনাথের একটি ঋতুনাট্যের নাম লেখ ?

 

 উত্তর। ফান্ধুনী (১৯১৬)! 

 

প্রশ্ন ।। ‘রাজা ও রানী’ নাটকের বিষয় নিয়ে রবীন্দ্রনাথ কোন নাটকটি রচনা করেন? 

 

উত্তর । তপতী নাটকটি রচনা করেন।

 

প্রশ্ন ।। ‘তিনসঙ্গী’ কি? 

 

উত্তর। রবিবার, শেষকথা, ল্যাবরেটরি

এই তিনটি গল্প একত্রে ১৯৪০ সালে ‘তিনসঙ্গী’ নামে প্রকাশিত হয়।

 

 

প্রশ্নঃ।। রবীন্দ্রনাথের প্রকাশিত প্রথম উপন্যাস কোনটি ?

 

উঃ। বউঠাকুরাণীর হাট (১৮৮৩)।

 

প্রশ্নঃ।। রবীন্দ্রনাথের কোন উপন্যাস গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয় নি

 

উঃ। করুণা’ উপন্যাসটি গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয়নি।

 

প্রশ্নঃ।। করুণা’ উপন্যাসটি কোন পত্রিকায় ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হয়।

 

উঃ। ভারতী’ পত্রিকায় ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হয়।

 

প্রশ্নঃ।। রবীন্দ্রনাথের ‘যােগাযােগ’ উপন্যাস কোন্ পত্রিকায় কি নামে প্রকাশিত হয়? 

 

উঃ। বিচিত্রা’ পত্রিকায় ‘ তিনপুরুষ’ নামে প্রকাশিত হয়।

 

প্রশ্নঃ।। রবীন্দ্রনাথের কোন উপন্যাস দুটি ছােটগল্পের বর্ধিত রূপ?

 

উঃ। দুই বােন (১৯৩৩), মালঞ্চ’ (১৯৩৪)।

 

প্রশ্নঃ।।  রবীন্দ্রনাথের সাহিত্য ও সাহিত্য তত্ত্ববিষয়ক প্রবন্ধগুলির নাম লেখ।

 

উঃ। প্রাচীন সাহিত্য (১৯০৭), সাহিত্য (১৯০৭), আধুনিক সাহিত্য (১৯০৭), লােকসাহিত্য (১৯০৭), সাহিত্যের পথে (১৯৩৬), সাহিত্যের স্বরূপ (১৩৫০)।

 

 

সুরেন্দ্রনাথ মজুমদার, অক্ষয় কুমার বড়াল, দেবেন্দ্রনাথ সেন ও দ্বিজেন্দ্রনাথ, জীবনানন্দ দাস

 

প্রশ্ন ।। মহিলা’ কাব্য কার লেখা?

 

 উঃ। মহিলা কাব্যটি সুরেন্দ্রনাথ মজুমদারের লেখাে। 

 

প্রশ্নঃ।। অক্ষয়কুমার বড়ালের কাব্যগ্রন্থগুলির নাম লেখা। 

 

উঃ। প্রদীপ (১৮৮৪), কনকাঞ্জলি (১৮৮৫), ভুল (১৮৮৭), শঙ্খ (১৯১০), এষা (১৯১২)।

 

প্রশ্নঃ।। এষা কাব্যটির রচনার উদ্দেশ্য কি? 

 

উত্তর। অক্ষয়কুমার দত্ত তার স্ত্রীর মৃত্যু উপলক্ষে এষা’ কাব্যটি লেখেন। 

 

প্রশ্ন ।। দেবেন্দ্রনাথ সেনের লেখা একটি কাব্যগ্রন্থের নাম লেখাে। 

 

উঃ। ফুলবালা (১৮৮০)। 

 

প্রশ্ন ।। অপূর্ব বীরাঙ্গনা কাব্যটি কার লেখা? কত সালে প্রকাশিত ? 

 

উঃ। অপূর্ব বীরাঙ্গনা কাব্যটি দেবেন্দ্রনাথ সেনের লেখা। ১৯১২ সালে প্রকাশিত।

 

 প্রশ্ন ।। স্বপ্ন-প্ৰয়াণ কাব্যটি কার লেখা? 

 

উঃ। স্বপ্ন-প্রয়াণ’ (১৮৭৫) কাব্যটি দ্বিজেন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা।

 

প্রশ্নঃ। স্বপ্ন-প্রয়াণ’ কাব্যটিতে পাশ্চাত্য কোন কবির কোন কাব্যের প্রভাব আছে ?

 

উঃ। স্বপ্ন-প্রয়াণ’ কাব্যটিতে স্পেনসারের ফেয়ারি কুইনের প্রভাব আছে। 

 

প্রশ্নঃ।। জীবনানন্দ দাসের প্রথম কাব্যগ্রন্থ কোনটি?

 

প্রশ্নঃ।। ঝরা পালক (১৯২৭)।

 

প্রশ্নঃ।। জীবনানন্দের লেখা একটি বিখ্যাত কাব্যের নাম লেখা। 

 

উঃ। ‘বনলতা সেন’ (১৯৪২)।

 

 

ভবনীচরণ বন্দ্যোপাধ্যায়, ভূদেব মুখােপাধ্যায়, রমেশচন্দ্র দত্ত ও তারকনাথ গঙ্গোপাধ্যায়

 

প্রশ্ন ।। ‘কলিকাতা কমলালয়’ গ্রন্থটি কার লেখা? কত সালে প্রকাশিত ?

 

 উত্তর। ভবানীচরন বন্দ্যোপাধ্যায়-এর লেখা। ১৮২৩ সালে প্রকাশিত।

 

প্রশ্ন ।। নববাবু বিলাস ও নববিবি বিলাস কাব্য দুটি কার লেখা?

 

উত্তর। ভবানীচরণ বন্দ্যোপাধ্যায়-এর লেখা।

 

প্রশ্নঃ।।  ভূদেব বন্দ্যোপাধ্যায়-এর ‘অঙ্গুরীয় বিনিময়’ কাহিনীটি কোন্ গ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত? 

 

উঃ। ‘ঐতিহাসিক উপন্যাস (১৮৫৮) গ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত।

 

প্রশ্ন ।। রমেশচন্দ্র দত্তের দুটি ঐতিহাসিক উপন্যাসের নাম লেখ। 

 

উত্তর। বঙ্গবিজেতা (১৮৭৪), মাধবীকঙ্কণ (১৮৭৭)।

 

প্রশ্ন ।। রমেশচন্দ্র দত্ত লিখিত দু’টি সামাজিক উপন্যাসের নাম লেখ। 

 

উত্তর। সংসার (১৮৮৬), সমাজ (১৮৯৪)।

 

প্রশ্ন ।। রমেশচন্দ্র দত্তের শ্রেষ্ঠ ঐতিহাসিক উপন্যাস কোনটি? 

 

উত্তর। ‘মহারাষ্ট্র জীবন প্রভাত’ (১৮৭৮)।

 

প্রশ্ন ।। স্বর্ণলতা গ্রন্থটির লেখক কে?

 

 উত্তর। তারকনাথ গঙ্গোপাধ্যায় (১৮৭৪)।

 

 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

 

 

প্রশ্নঃ।। শরৎচন্দ্রের রাজনৈতিক উপন্যাসটির নাম কি?

 

উঃ ‘পথের দাবী’। 

 

প্রশ্নঃ।। শরৎচন্দ্রের আত্মজীবনীমূলক উপন্যাস কোনটি ? 

 

উঃ।। শ্রীকান্ত আত্মজীবনীমূলক উপন্যাস। 

 

প্রশ্নঃ।। শরৎচন্দ্রের সমাজ সমালােচনামূলক উপন্যাসগুলির নাম লেখ। 

 

উঃ।। পল্লীসমাজ, অরক্ষণীয়া, বামুনের মেয়ে।

 

প্রশ্নঃ।। শরৎচন্দ্রের প্রথম মুদ্রিত উপন্যাস কোনটি? 

 

উঃ। বড়দিদি (১৯১৩)।

 

প্রশ্নঃ।।  শরৎচন্দ্র লিখিত সর্বশেষ উপন্যাস কোনটি? 

 

উঃ।। বিপ্রদাস (১৯৩৫)।

 

 

বিভূতিভূষণ, তারাশঙ্কর ও মাণিক বন্দ্যোপাধ্যায়

 

প্রশ্ন ।। বিভূতিভূষণের তিনখানি উপন্যাসের নাম লেখ। 

 

উত্তর। পথের পাচালী (১৯২৯), অপরাজিত (১৯৩২), আরণ্যক (১৩৪৫ বঙ্গাব্দ)। 

 

প্রশ্ন ।। দৃষ্টি প্রদীপ’ উপন্যাসটি কার লেখা? 

 

উত্তর। ‘দৃষ্টি প্রদীপ’ উপন্যাসটি বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়-এর লেখা।

 

প্রশ্ন ।। আদর্শ হিন্দু হােটেল’ উপন্যাসটি কার লেখা? 

 

উত্তর। আদর্শ হিন্দু হােটেল’ উপন্যাসটি বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়-এর লেখা। 

 

 প্রশ্নঃ।। ইছামতী’ উপন্যাসটি কার লেখা?

 

ইছামতী’ উপন্যাসটি বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়-এর লেখা। 

 

প্রশ্ন ।। তারাশঙ্কর বন্ধ্যোপাধ্যায় লিখিত কয়েকটি উপন্যাসের নাম লেখ। 

 

উঃ। রাইকমল (১৯৩৫), ধাত্রীদেবতা (১৯৩৯), কালিন্দী (১৯৪০), গণদেবতা

(১৯৪২), পঞ্চগ্রাম (১৯৪৩), হাঁসুলিবাঁকের উপকথা (১৯৪৭)। 

 

প্রশ্ন ।। মানিক বন্দ্যোপাধ্যায় লিখিত কয়েকটি উপন্যাসের নাম লেখ।

 

উঃ। দিবারাত্রির কাব্য (১৯৩৫), পুতুলনাচের ইতিকথা (১৯৩৬), পদ্মানদীর মাঝি (১৯৩৬), শহরতলী (১৯৪০), অহিংসা (১৯৪৮) প্রভৃতি। 

 

প্রশ্নঃ।। মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়-এর প্রথম গল্পের নাম কি?

 

উঃ।অতসী মামী (১৯২৮)।

 

 

প্ৰশ্ন।। মানিক এর উল্লেখযােগ্য গল্পগুলি কি কি?

 

উঃ।।  প্রাগৈতিহাসিক, হারাণের নাতজামাই, সরীসৃপ, ছােট বকুলপুরের যাত্রী ইত্যাদি।

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস বাংলা নাটক

 

প্রশ্নঃ। বাংলা ভাষায় লিখিত প্রথম মৌলিক নাটক কোনটি?

 

তারাচরূপ শিকদার লিখিত ভদ্রার্জুন (১৮৫২)।

 

 প্রশ্ন ।। সর্বপ্রথম বাংলা নাটক কোথায় অভিনীত হয়েছিল? 

 

উঃ। ১৮৩৩ স্বীষ্টাব্দে শ্যামবাজারে নবীন বসুর বাড়িতে প্রথম বাংলা নাটক অভিনীত হয়েছিল।

 

 

প্রশ্নঃ।। কুলীনকুল সর্বস্ব কার রচনা?

 

উঃ। রামনারায়ণ তর্করত্নের রচনা।

 

প্রশ্নঃ।। বাংলায় লিখিত প্রথম ট্রাজেডি নাটক কোনটি? 

 

উঃ।কীর্তিবিলাস (১৮৫২)। 

 

প্রশ্নঃ।।কে প্রথম বাংলা রঙ্গমঞ্চ স্থাপন করেন? 

 

উঃ। গেরাসিম লেবেডফ নামে এক রুশ প্রথম বাংলা রঙ্গমঞ্চ স্থাপন করেন।

 

 

নাট্যকার মধুসূদন

 

 

 

প্রশ্নঃ।।মধুসূদন দত্তর প্রথম নাটক কোনটি? 

 

উঃ।।শর্মিষ্ঠা (১৮৫৯)। 

 

প্রশ্নঃ।।  অমিত্রাক্ষর ছন্দ-এর প্রয়ােগ করেন প্রথম কোন্ নাটকে

 

উঃ। পদ্মাবতী (১৮৬০) নাটকে কলির সংলাপে অমিত্রাক্ষর ছন্দ প্রয়ােগ করেন।

 

প্রশ্নঃ। । মধুসূদনের ঐতিহাসিক নাটক কোনটি? 

 

উঃ।।‘কৃষ্ণকুমারী’ (১৮৬১)। 

 

প্রশ্নঃ। ‘কৃষ্ণকুমারী’ নাটকের কাহিনী কোথা থেকে গৃহীত হয়েছে?

 

উঃ।  ‘কৃষ্ণকুমারী’ নাটকের কাহিনী টডের “Annals and Antiquities of Rajasthan” থেকে গৃহীত হয়েছে। 

 

প্রশ্নঃ।। মধুসূদনের জীবিতকালে প্রকাশিত সর্বশেষ নাটক কোনটি? 

 

উঃ।মধুসূদনের জীবিতকালে শেষ নাটক মায়াকানন’ (১৮৭৪)। 

 

প্রশ্নঃ।। মধুসূদন দত্তের দুটি প্রহসনের নাম লেখ। 

 

উঃ। ‘একেই কি বলে সভ্যতা’ (১৮৬০), ‘বুড়াে শালিকের খাড়ে রাে’ (১৮৬০)।

 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস দীনবন্ধু মিত্র

 

প্রশ্ন ।। ‘নীলদর্পণ’ নাটকটি কার লেখা?

 

 উত্তর। ‘নীলদর্পণ’ নাটকটি দীনবন্ধু মিত্রের লেখা। 

 

প্রশ্ন ।। ‘নীলদর্পণ’ নাটকটি কবে প্রকাশিত হয়? 

 

উত্তর। ‘নীলদর্পণ’ নাটকটি ১৮৬০ খ্রীষ্টাব্দে প্রকাশিত হয়। 

 

প্রশ্ন ।। দীনবন্ধু মিত্রের রােমান্সধর্মী নাটকগুলির নাম লেখ। 

 

উত্তর । নবীনতপস্বিনী (১৮৬৩), কমলে কামিনী (১৮৭৩)। 

 

প্রশ্ন ।। দীনবন্ধু মিত্রের লেখা প্রহসন গুলি কি?

 

 উত্তর। বিয়েপাগলা বুড়াে (১৮৬৬), সধবার একাদশী (১৮৬৬), জামাইবারিক (১৮৭২)। 

 

প্রশ্ন ।। দীনবন্ধু মিত্রের সর্বশেষ নাটক কোটি ? 

 

উঃ। দীনবন্ধু মিত্রের সর্বশেষ নাটক ‘কমলেকামিনী’ (১৮৭৩)। উত্তর।

 

 

 

প্রশ্নঃ।।কি ছদ্মনামে দীনবন্ধু ‘নীলদর্পণ’ নাটক লেখেন?

 

উঃ। দীনবন্ধু কেন চিৎ পথিকে নাভি প্রণীতম ছদ্মনামে নীলদর্পন নাটক লেখেন। 

 

প্রশ্নঃ।।দীনবন্ধু মিত্রের নীলদর্পণের ইংরাজী অনুবাদ কে কি নামে করেন।

 

উঃ। রেভাঃ লঙ সাহেব ‘The Indigo Planting Mirror’ এই নামে নীলদর্পণ ইংরাজী অনুবাদ করেন। 

 

প্রশ্নঃ।। দীনবন্ধুর শ্রেষ্ঠ প্রহসন কোন্‌টি? ।

 

উঃ। দীনবন্ধুর শ্রেষ্ঠ প্রহসন সধবার একাদশী।

 

 

 

গিরিশচন্দ্র ঘােষ

 

প্রশ্ন ।। গিরিশচন্দ্র ঘােষের একটি গীতিনাট্যের নাম লেখ।

 

 উত্তর। আর্গমনী (১৮৭৭)। 

 

প্রশ্ন ।। গিরিশচন্দ্র ঘােষের একটি পৌরাণিক নাটকের নাম লেখ।

 

 উত্তর। সীতার বনবাস (১৮৮২)।

 

 প্রশ্ন ।। গিরিশচন্দ্র ঘােষের একটি চরিত্র মূলক নাটকের নাম লেখ। 

 

উত্তর। চৈতন্যলীলা (১৮৮৪)।

 

 প্রশ্ন ।। গিরিশচন্দ্রের একটি ঐতিহাসিক নাটক এর নাম লেখ।

 

 উত্তর। অশােক (১৯০৪)।

 

 প্রশ্ন ।। গিরিশচন্দ্রের একটি সামাজিক নাটক এর নাম লেখ। 

 

উত্তর। প্রফুল্ল (১৮৮৯)। 

 

প্রশ্ন ।। গিরিশচন্দ্রের শ্রেষ্ঠ পৌরাণিক নাটক কোনটি? 

 

উত্তর। জনা’ গিরিশচন্দ্রের শ্রেষ্ঠ পৌরাণিক নাটক। 

 

প্রশ্ন ।। গিরিশচন্দ্রের শ্রেষ্ঠ দুটি সামাজিক নাটকের নাম লেখ। 

 

উত্তর। ‘প্রফুল্ল (১৮৮৯) ও বলিদান’ (১৯০০)। 

 

প্রশ্ন ।। গিরিশচন্দ্র ঘােষের বিল্বমঙ্গল নাটকের উৎস কোথায় আছে? 

 

উঃ । নাভা দাসের ভক্তমাল’ গ্রন্থে।

 

 

 

ক্ষীরােদ প্রসাদ বিদ্যাবিনােদ

 

 

প্রশ্নঃ।।ক্ষীরােদ প্রসাদ বিদ্যাবিনােদ লিখিত প্রথম নাটক কোনটি?

 

উঃ। ফুলশয্যা (১৮৯৪)। 

 

প্রশ্নঃ।। ক্ষীরােদ প্রসাদ বিদ্যাবিনােদ এর শেষ নাটক কোনটি ?

 

উঃ।  নর-নারায়ণ (১৯২৫)।

 

প্রশ্নঃ। ক্ষীরােদপ্রসাদের পৌরাণিক নাটকগুলির নাম লেখ। 

 

উঃ। সাবিত্রী (১৩০৯), নর-নারায়ণ (১৯২৫), ব্রম্ৰবাহন (১৩০৬), ভীষ্ম (১৩২০)। ইত্যাদি।

 

 

প্রশ্নঃ।। ক্ষীরােদ প্রসাদ বিদ্যাবিনােদ এর লেখা উপন্যাসটির নাম কি?

 

উঃ। ক্ষীরােদপ্রসাদের লেখা উপন্যাসটির নাম ‘গুহামধ্যে। 

 

প্রশ্নঃ।। ক্ষীরােদপ্রসাদের সর্বাধিক জনপ্রিয় নাটকটির নাম লেখ।

 

উঃ। ‘আলিবাবা। 

 

প্রশ্নঃ।। ক্ষীরােদপ্রসাদের কয়েকটি ঐতিহাসিক নাটকের নাম লেখ।

 

উঃ। নন্দকুমার (১৩১৪), বঙ্গের প্রতাপাদিত্য (১৯০৩), আলমগীর (১৯২১)।

 

 

বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস দ্বিজেন্দ্রলাল রায়

 

 

প্রশ্নঃ।। দ্বিজেন্দ্রলাল রায় লিখিত প্রহসন গুলির নাম লেখ।

 

উঃ। ‘কল্কি অবতার’ (১৮৯৫), ‘বিরহ (১৮৯৭), এ্যহস্পর্শ’ (১৯০০), ‘প্রায়শ্চিত্ত’ (১৯০২) পুনর্জন্ম (১৯১১)।

 

প্রশ্নঃ।। দ্বিজেন্দ্রলাল রায় লিখিত পৌরাণিক নাটক গুলির নাম লেখ। 

 

উঃ। সীতা (১৯০৮), পাষাণী (১৯০০), ভীষ্ম (১৯১৪)।

 

প্রশ্নঃ।। দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের ঐতিহাসিক নাটক গুলির নাম লেখ। 

 

উঃ। প্রতাপসিংহ (১৯০৫), দুর্গাদাস (১৯০৫), নূরজাহান (১৯০৮), সাজাহান (১৯০৯), চন্দ্রগুপ্ত (১৯১১) সিংহল বিজয় (১৯১৫)। ‘রাণা প্রতাপ সিংহ’ কোন্ নাটকের বিষয় বস্তু থেকে গৃহীত।

 

প্রশ্নঃ ।। রাণা প্রতাপসিংহ’ কোন নাটকের বিষয়বস্তু থেকে গৃহীত?

 

উঃ । ‘রাণা প্রতাপসিংহ’ নাটকের বিষয়বস্তু টডের Annals and Antiquties of Rajastian থেকে গৃহীত। 

 

প্রশ্ন ।। দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের দুটি সমাজিক নাটকের নাম লেখ।

 

উঃ। পরপারে (১৯১২) ও বঙ্গনারী (১৯১৬)। 

 

প্রশ্নঃ।। মৃত্যুর পরে প্রকাশিত দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের দুটি সামাজিক নাটকের নাম লেখ।

 

উঃ। ‘সিংহল বিজয়’ (১৯১৫), বঙ্গনারী’ (১৯১৬)।

 

 

 

বিজন ভট্টাচার্য

 

প্রশ্নঃ।। বিজন ভট্টাচার্যের পুর্ণাঙ্গ নাটকগুলির নাম লেখ। 

 

উঃ। নবান্ন, অবরােধ, জতুগৃহ, গােত্রান্তর, ছায়াপথ, মাস্টারমশাই, দেবীগর্জন, ধর্মগােলা, কৃষ্ণপক্ষ, গর্ভবতী জননী, আজ বসন্ত, সােনার বাংলা, গুপ্তধন, চলাে সাগরে।

 

 

প্রশ্নঃ। ।বিজন ভট্টাচার্য্যের একাঙ্ক নাটকগুলির নাম লেখ।

 

আগুন, জবানবন্দী, জননেতা, মরাচাদ, কলঙ্ক, সাগ্নিক, লাস ঘুইরা যাউক, চুল্লী, হাঁসখালির হাঁস।

 

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *